বিজয়ের মাসে ৫-০ তে

কারো মুখের দিকে না তাকিয়ে ব্যবস্থার নির্দে

কাইয়ুম চৌধুরী আর নেইে

ঢাকার সঙ্গে সীমান্ত চুক্তি কার্যর হবে: মোদ

বিজয়ের মাসে ৫-০ তে জয়্

alt text

আজকাল, ০২ ডিসেম্বর: ২০১৪ কৃষকের ঘরে ধান ওঠে নব্বান্ন উৎসবের মধ্য দিয়ে। সেই উৎসবে শুধুই আনন্দের রেণু। অগ্রহায়ণের শীত-সন্ধ্যায় সোমবারের মিরপুর যুগপৎ বিশ্বরেকর্ড এবং ৫-০-তে জিম্বাবুয়েকে হোয়াইটওয়াশ করার আলো ঝলমলে মঞ্চ হয়ে উঠল। সেই মঞ্চে থোকা থোকা লাল-সবুজ ফুল। সেই ফুলের মাঝে তাইজুল। অভিষেকেই হ্যাটট্রিক করে বিশ্বরেকর্ড গড়া লাজুক-ছেলে। ছবিতে আর কোনো রঙের প্রলেপ দিতে বাকি রইল না। বছরটা কাটতে যাচ্ছিল খরায়। ৩-০-র পর ৫-০, জিম্বাবুয়েকে টানা দু’বার হোয়াইওয়াশ করে শাওন ধারা ঝরল অবিরাম।একদিনের ক্রিকেট ইতিহাসে অভিষেকে এর আগে কারও হ্যাটট্রিক ছিল না। সেই বিশ্বরেকর্ড কাল গড়লেন বাংলাদেশের স্পিনার তাউজুল ইসলাম। সেই কৌলীন্যে বাড়ল জিম্বাবুয়ের গ্লানি। একটি জয়ের জন্য তৃষ্ণার্ত অতিথিরা ৩০ ওভারেই মাত্র ১২৮ রানে অলআউট। আরেকটি প্রতিরোধহীন ম্যাচে ২৬ ওভারের মধ্যে পাঁচ উইকেটে পঞ্চম ওয়ানডে জিতে মাশরাফিরা সিরিজ নিজেদের করে নিলেন ৫-০-তে। মাহমুদউল্লাহ আবারও ফিফটি (৫১) করে অপরাজিত। জিম্বাবুয়ে আবারও হোয়াইটওয়াশ। বিশ্বকাপের আগে আÍবিশ্বাসের জ্বালানি পেয়ে গেল বাংলাদেশ।প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত থেকে একে একে ট্রফি নিলেন টেস্ট অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম, ওয়ানডে দলপতি মশরাফি মুর্তজা, ম্যাচসেরা তাইজুল এবং সিরিজসেরা মুশফিকুর। ফ্লাডলাইট নেভার পরও অনেকক্ষণ আলোকিত ছিল মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়াম। যেখান থেকে প্রথম টেস্ট জয়ের মধ্য দিয়ে সিরিজ শুরু। এরপর খুলনা ও চট্টগ্রাম হয়ে সেই মিরপুরে শেষ। সফলতার বিনিসুতো মালায় গাঁথা সূচনা ও সমাপ্তির এমন মেলবন্ধন কবে দেখেছিল বাংলাদেশের ক্রিকেট? কবে এমন পুষ্পিত উদ্যান মুশফিকুর, মাশরাফিদের ‘সংসার’? কবে জুবায়ের, তাইজুলরা ফুল হয়ে ফুটেছিলেন। পূর্ণিমার চাঁদ যেন এই সিরিজ। বিশ্বরেকর্ড দিয়ে শেষ। এমন সমাপ্তি আগামীদিনে সাফল্যের সারথি হওয়ার সুরভি ছড়াবে টাইগারদের পথচলায়।সাদা ও রঙিনের মিশেলে টানা আট জয়। টেস্ট অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ডানপাশে, বাঁ-পাশে ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি মুর্তজা। দু’জনের হাতে দুটি সিরিজ জয়ের ঝাঁ চকচকে ট্রফি আগেই তুলে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। মুশফিককে বারবার পিঠ চাপড়ে কী যেন বললেন, এরপর মাশরাফিকে ডেকে নিলেন, তাকেও পিঠ চাপড়ে বীরত্বের পুরস্কারই দিলেন প্রধানমন্ত্রী। টানা আট জয়ে শেষ হল বাংলাদেশের জয়যাত্রা।সারা বছর যেখানে শুধু ব্যর্থতার গল্প শুনাতে হয়েছে মুশফিকদের, কাল সেই মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে ওয়ানডে সিরিজ শেষে টেস্ট অধিনায়ক মুশফিক ও ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি শুনিয়েছেন সাফল্যগাথার গল্প। অনেক প্রাপ্তির এই সিরিজে জিম্বাবুয়েকে দ্বিতীয়বার ৫-০-তে বাংলাওয়াশ করল মাশরাফিরা। মাঠে বসেই বাংলাদেশের শেষ জয় দেখলেন শেখ হাসিনা। প্রায় দুই ঘণ্টার মতো মাঠে ছিলেন তিনি। বাংলাদেশের দুর্দন্ত সাফল্যের পর প্রধানমন্ত্রীর হাত থেকে ট্রফি গ্রহণ। পুরস্কার দেয়ার সময় বারবার করতালি দিয়ে অভিনন্দন জানিয়ে ঘরে ফিরিছেন ক্রিকেটপাগল দর্শকরা।

কারো মুখের দিকে না তাকিয়ে ব্যবস্থার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

alt text

কারো মুখের দিকে না তাকিয়ে শিক্ষাঙ্গনে সন্ত্রাস সৃষ্টিকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সোমবার সিলেটের বিভাগীয় কমিশনার ও পুলিশ কমিশনারের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে তিনি এই নির্দেশ দেন। এর আগে গত বৃহস্পতিবার সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ছাত্রলীগের দুই পরে সংঘর্ষে সুমন চন্দ্র দাস (২১) নামের ছাত্রলীগের এক কর্মী নিহত হন। এছাড়া প্রক্টরসহ অন্তত ১৫ জন আহত হন। সংঘর্ষের জেরে অনির্দিষ্টকালের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করা হয়।

কাইয়ুম চৌধুরী আর নেইে

alt text

ঢাকা, ৩০ নভেম্বর- শিল্পী কাইয়ুম চৌধুরী আর নেই। আজ রোববার রাতে তিনি ইন্তেকাল করেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। রাজধানীর আর্মি স্টেডিয়ামে উচ্চাঙ্গসংগীতের আসরে বক্তব্য দেওয়ার সময় কাইয়ুম চৌধুরী অসুস্থ হয়ে পড়েন। সেখান থেকে বরেণ্য এই শিল্পীকে রাজধানীর সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান রাত নয়টার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালের কমান্ড্যান্ট ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. নাসিরউদ্দিন বলেন, ‘রাত ৯টায় শিল্পী কাইয়ুম চৌধুরী মারা গেছেন। তিনি মারাত্মক হূদরোগে (কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট) আক্রান্ত হয়েছিলেন। সিএমএইচে আনার পর তাঁকে বাঁচাতে সর্বোচ্চ চেষ্টা চালানো হয়েছে।’ রাত পৌনে ১০ টার দিকে স্বজনেরা কাইয়ুম চৌধুরীর মরদেহ স্কয়ার হাসপাতালের হিমাগারে রাখার জন্য নিয়ে যান। তার মরদেহ স্কয়ার হাসপাতালের হিমাগারে রাখা হবে।

ঢাকার সঙ্গে সীমান্ত চুক্তি কার্যকর হবে: মোদিক

alt text

া০১ ডিসেম্বর- ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি আসামে গিয়ে বলেছেন, বাংলাদেশে থেকে অবৈধ অভিবাসন বন্ধ করার লক্ষ্যেই তিনি ঢাকার সঙ্গে সীমান্তে ভূমি বিনিময় চুক্তি কার্যকর করবেন। তার দল বিজেপির এক কর্মী সভায় ভাষণে প্রধানমন্ত্রী মোদি বলেন, এটি করলেই আসামে অনুপ্রবেশ সমস্যার স্থায়ী সমাধান করা সম্ভব হবে। তাকে উদ্ধৃত করে ভারতের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা পিটিআই এবং বার্তা রয়টরস এই খবর দিচ্ছে। মোদি বলেন, "এই ভূমি বিনিময় চুক্তি নিয়ে আসামের মানুষের মনোভাব আমি জানি। আমি আপনাদের আশ্বস্ত করছি আসামের নিরাপত্তার সাথে কোনো আপোষ করা হবে না। চুক্তি হলে তাৎক্ষণিক কিছু লোকসান হলেও, আখেরে আসাম লাভবান হবে।" বাংলাদেশের সঙ্গে স্থলসীমা চুক্তি কার্যকর হলে, আসামের ভেতর অপদখলীয় কিছু ভূমি বাংলাদেশকে দিয়ে দিতে হবে। এ নিয়ে স্থানীয় বিজেপি সহ আসামের জাতীয়তাবাদী দলগুলোর মধ্যে তীব্র আপত্তি রয়েছে। মোদি বলেন, তার সরকার বাংলাদেশ থেকে অনুপ্রবেশের সমস্ত রাস্তা চিরতরে বন্ধ করে দেবে। দিল্লিতে আটকে গেছে চুক্তি ভারতের কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা বাংলাদেশের সঙ্গে স্থলসীমা চুক্তি অনুমোদন করার পর এখন ভারতীয় সংসদের উভয় কক্ষেই এ ব্যাপারে সংবিধানের সংশোধনী আনার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে সরকার। এই সংবিধান সংশোধনীটি পাশ করানো গেলেই ছিটমহল ও অপদখলীয় ভূমির বিনিময় করতে পারবে ভারত আর বাংলাদেশ। প্রস্তাবিত স্থলসীমা বিনিময় চুক্তি র্কার্যকর করা হলে ভারত এবং বাংলাদেশ ছিটমহল ও অপদখলীয় ভূমিগুলির বিনিময় করতে পারবে। ভারত আর বাংলাদেশের মোট ১৬২টি ছিটমহল বিনিময় সম্ভব হবে। এর জন্য ভারতকে ১৭ হাজারের কিছু বেশি একর জমি বাংলাদেশকে দিতে হবে, আর ভারত পাবে সাত হাজার একরের একটু বেশি জমি। অপদখলীয় ভূমিগুলিও বিনিময় করা হবে, যার ফলে ভারত প্রায় দুহাজার আটশ একর জমি পাবে আর বাংলাদেশকে দিতে হবে দুহাজার দুশো ষাট একরের মত জমি। প্রয়াত ইন্দিরা গান্ধী ও শেখ মুজিবর রহমানের মধ্যে স্বাক্ষরিত চুক্তি অনুযায়ী এই বিনিময়ের কথা ছিল। বাংলাদেশের সংসদ ওই চুক্তি অনুমোদন করে দিয়েছে বহু বছর আগে। কিন্তু ভারত বিগত চার দশকেও সেটি করে উঠতে পারে নি। চুক্তি অনুমোদন করতে গেলে ভারতকে সংবিধান সংশোধন করতে হবে। ়াত পৌঁ ছে দেন।

অভিনেত্রী কবরীর ৫০ বছরে মৌসুমীর মুখোমুখি

alt text

বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের মিষ্টি মেয়ে কবরী। 'সুতরাং' থেকে শুরু... এরপর নিরন্তর বয়ে চলা। এখন পার করছেন অভিনয়ের ৫০ বছর। অভিনেত্রী কবরীর অভিনয় জীবন নিয়ে তৈরি হয়েছে একটি বিশেষ অনুষ্ঠান। আর এই অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনা করেছেন চলচ্চিত্রের প্রিয়দর্শিনী নায়িকা মৌসুমী। তাদের মধ্যে হয়েছে অনেক কথা, জানা-অজানা অনেক অনেক বিষয় নিয়ে। আর এসবই থাকছে 'অভিনেত্রী কবরীর ৫০ বছর' অনুুষ্ঠানে। অনুষ্ঠান প্রসঙ্গে সঞ্চালক চিত্রনায়িকা মৌসুমী বলেন, 'আমি আমার জীবনের একাধিক ইন্টারভিউতে বলেছি কবরী আপা আমার আইডল। এরপর সেই আইডলের ক্যারিয়ারের ৫০ বছরপূর্তির ইন্টারভিউতে যখন আমাকে দায়িত্ব দেওয়া হলো আমি সানন্দে রাজি হই। কারণ এটা আমার ক্যারিয়ারের অন্যতম স্মরণীয় ঘটনা।' অনুষ্ঠানটি প্রচার হবে ৮ আগস্ট শুক্রবার রাত ৮টায় চ্যানেল আইতে। অনুষ্ঠানটি পরিকল্পনা ও পরিচালনা করেছেন আবদুর রহমান।

‘ক্ষমতায় না যাওয়া পর্যন্ত রাজপথে থাকবো’

alt text

ক্ষমতায় না যাওয়া পর্যন্ত রাজপথে থাকবেন বলে জানিয়েছেন, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। বুধবার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে গাজায় ইসরায়েলি হামলার প্রতিবাদে জাতীয় পার্টি আয়োজিত মানববন্ধনে অংশ নিয়ে তিনি এ ঘোষণা দিয়ে বলেন, গণমাধ্যম বলে আমি নাকি চতুর্মুখী ঢিল ছুঁড়ছি। আমি একদিকে ঢিল ছুঁড়ছি। সেটা হচ্ছে ক্ষমতার দিকে। ইসরায়েলের ধ্বংস কামনা করে এরশাদ বলেন, ইসরায়েল নিপাত যাক। গাজার বর্বরতার বিরুদ্ধে প্রথমবারের মত রাজপথে নেমেছি। ক্ষমতায় না যাওয়া পর্যন্ত রাজপথে থাকবো। গাজায় হামলায় মদত দেয়ায় তিনি বৃটেন ও আমেরিকার সমালোচনা করেন। সকাল ১১টা থেকে ১টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত মানববন্ধন অনুষ্ঠানে পানিসম্পদ মন্ত্রী ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, জাতীয় পার্টির মহাসচিব জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলুসহ নেতাকর্মীরা অংশ নেন।

ওয়ার্ল্ড মুসলিমা হলেন ফাতমােছে ॥

alt text

মিস ওয়ার্ল্ডের পাল্টা মুসলিম বিশ্বের নারীদের নিয়ে আয়োজিত ওয়ার্ল্ড মুসলিমার মুকুট জয় করেছেন তিউনিসিয়ার মেয়ে ফাতমা বেন গুয়েফ্রাচে। এবারের আয়োজনটি বসেছিল ইন্দোনেশিয়ার জাকার্তায়। প্রতিযোগিতায় ১৮ জনকে পেছনে ফেলে মুকুট জিতে নিয়েছেন তিনি। নাম ঘোষণার পর কান্না জড়িত কণ্ঠে তিনি প্রতিক্রিয়ায় জানান, 'আল্লাহ যেন আমার সহায় হন, ফিলিস্তিনি ও সিরিয়ার জনগণকে মুক্ত করুন।' ২৫ বছর বয়সী এই নারী পেশায় একজন কম্পিউটার বিজ্ঞানী। পুরস্কার হিসেবে তিনি পাবেন একটি সোনার ঘড়ি, ডিনার পার্টির আমন্ত্রণ, হজে অংশগ্রহণ করার সুযোগ। ওয়ার্ল্ড মুসলিমা অ্যাওয়ার্ড প্রথম মানুষের মধ্যে আলোচনায় আসে ২০১৩ সালে। ঐ বছর ইন্দোনেশিয়ার বালিতে মিস ওয়ার্ল্ডের প্রতিবাদ হিসেবে প্রথমবারের মত এই আয়োজন করা হয়েছিল। প্রতিবাদের মুখে সেবার 'বিকিনি কনটেস্ট'কে প্রতিযোগিতা থেকে বাদ দেয়া হয়েছিল।


Bengali News Paper Toronto Office: 3018 Danforth Ave., Suite-210,Toronto, Ontario. M4C1M7. Chairman Board of Editors . Syed A Goffar,  Editor: Ronny A Chowdhury
Tel:416-699-1500 Fax: 418-699-6600 E-mail: aajkalca@gmail.com Web: aajkalca.com